,
Menu |||

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে কর্তৃপক্ষের অবহেলায় ঘোষগাঁও ব্রিজের এপ্রোচ ধসে গাড়ি চলাচল বন্ধ

বৃহষ্পতিবার ৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ :
ওয়াহিদুর রহমান ওয়াহিদ : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে ঘোষগাঁও ব্রিজের পূর্ব দিকের এপ্রোচ ধসে পড়েছে। এতে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় জন ভোগান্তি চরমে পৌছেছে।
সরজমিনে স্থানীয়রা জানান, বুধবার দুপুরে ব্রিজের প্রায় ২৫ থেকে ২৮ ফুট এরিয়া নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো এপ্রোচ ধসে পড়েছে। বর্তমানে মাত্র ২ থেকে ৩ ফুট অবশিষ্ট সড়ক ভাঙনের কবলে রয়েছে। তাও যে কোন সময় ধসে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ ছোট রাস্তা দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষ পায়ে হেটে চলাচল করছেন।
এদিকে-এপ্রোচটি ধসে পড়ায় জগন্নাথপুর-শিবগঞ্জ সড়কে সকল প্রকার যানবাহন সরাসরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে যাত্রী ভোগান্তি চরমে পৌছেছে। যদিও জগন্নাথপুর থেকে এ ব্রিজ ও ব্রিজ থেকে শিবগঞ্জ পর্যন্ত দুই দিক থেকে যানবাহন চলাচল করছে। তবে ব্রিজ এরিয়া পায়ে হেটে যাতায়াত করছেন জনতা।
এ সময় স্থানীয় ভূক্তভোগী জনতা জানান, গত প্রায় দুই মাস আগে ব্রিজের এ স্থানের প্রায় ২০ ফুট এরিয়া নিয়ে প্রথমে ধসে পড়ে। এ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ফলোআপ করে সংবাদ চাপা হলেও কর্তৃপক্ষের নজরে আসেনি। তারা অভিযোগ করে বলেন, এ সময় ধসে যাওয়া স্থানে মেরামত করা হলে এখন পুরোটা ধসে যেত না। তখন কাজ করা হলে হয়তো মাত্র ৪/৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ধসে যাওয়া স্থান পুনরায় মেরামত করা যেত। বর্তমানে ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়েও কাজ শেষ করা যাবে কিনা সন্দেহ রয়েছে বলে এ কাজে অভিজ্ঞ অনেকে জানান। এতে কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে কাজের ব্যয় ও জনতার ভোগান্তি বেড়েছে বলে ভূক্তভোগীদের মধ্যে অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) গোলাম সারোয়ার কর্তৃপক্ষের অবহেলার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এ স্থানের গভীরতা প্রায় ৬০ ফুট। এখানে সাধারণ ভাবে মেরামত কাজ করার কোন সুযোগ নেই। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ধসে যাওয়া স্থানটি পুনরায় মেরামত করার বিষয়ে আমাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। আশা করছি দ্রুত কাজ শুরু হয়ে যাবে।

: জগন্নাথপুরে প্রভাষকের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগে এলাকায় তোলপাড় :
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক আবদুর রউফের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
জানাগেছে, স্থানীয় হবিবপুর শাহপুর গ্রামের বাসিন্দা বিএনপি নেতা আবদুর রউফ বিগত ২০০৬ সালে জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজে রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগে প্রভাষক পদে নিয়োগ পান। তখন কলেজটি ডিগ্রিতে উন্নীত হয়নি। এর কয়েক দিন পর তথ্য গোপন করে তিনি উপজেলার সৈয়দপুর সৈয়দীয়া শামছিয়া আলিম মাদ্রাসায় প্রভাষক পদে চাকুরি করেন। ্এমতাবস্থায় মাদ্রাসায় যোগদানের ফলে তাঁর কলেজের প্রভাষক পদটি শূন্য হওয়ার কথা। তবে এ মাদ্রাসায় তিনি প্রায় দুই বছর চাকুরি করে ২০০৮ সালে আবার জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজে ফিরে আসেন। বর্তমানেও তিনি জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজে প্রভাষকের দায়িত্ব পালন করছেন।
এ ব্যাপারে প্রভাষক আবদুর রউফের চাকুরি কালীন সময়ের সকল তথ্য জানতে হবিবপুর আশিঘর গ্রামের বাসিন্দা শিক্ষানুরাগী আবদুর নুর গত ৫ নভেম্বর সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে তথ্য অধিকার আইনে লিখিত আবেদন করেন। এ ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।
এ ব্যাপারে আবেদনকারী আবদুর নুর জানান, একই সাথে দুইটি এমপিও ভূক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করার বিধান নেই। তথ্য গোপন করে একই সাথে দুইটি প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করা আইন বহির্ভূত। এ বিষয়ে তথ্য জানতে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজ ও সৈয়দপুর সৈয়দীয়া শামছিয়া আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষকের কাছে পত্র প্রেরণ করা হলেও এ পর্যন্ত কোন তথ্য জানানো হয়নি। তবে আবদুর রউফ নিজেকে রক্ষা করতে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন।
এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জাহিদুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের চিঠি পেয়েছি। তবে কলেজ কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনাক্রমে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আবদুর রউফের সাথে বারবার চেষ্টা করা হলেও মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

: জগন্নাথপুর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রদীপ প্রজ্জ্বলন :
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী এসোসিয়েশনের উদ্যোগে সারা দেশের ধারাবাহিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে পৌর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা পাওয়ার দাবিতে বুধবার সন্ধ্যায় পৌর ভবনের সামনে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।
এ সময় উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম-সম্পাদক লুৎফুর রহমান, জগন্নাথপুর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী এসোসিয়েশনের সভাপতি পৌর সচিব মোবারক হোসেন, সাধারণ সম্পাদক পৌর প্রকৌশলী সতীশ গোস্বামী, কর আদায়কারী রশিদ আলী সহ সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Share
প্রধান সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতা ॥ শাহাব উদ্দিন আহমেদ বেলাল
প্রধান সম্পাদক কর্তৃক লন্ডন থেকে প্রকাশিত।
ফোন ॥ (+৪৪)৭৯৪৪৩০৫৪৮৮
ই-মেইল ॥ probashebangladesh@hotmail.com
Copyright © BY Probashe Bangladesh
Design & Developed BY Popular-IT.Com