,
Menu |||

হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ১ পুলিশসহ আহত শতাধিক : ২০ দাঙ্গাবাজ গ্রেফতার

বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ :

মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং থেকে : বানিয়াচঙ্গে ঈদের ছুটি চলাকালীন সময়ে পৃথক সংঘর্ষে ১ জন নিহত হয়েছে। এইসব সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত হয়েছে শতাধিক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়েছে। সংঘর্ষে জড়িত থাকার অপরাধে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ ২০ দাঙ্গাবাজকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উদ্ধার করা হয়েছে দেশীয় মরণাস্ত্র। এসব ঘটনায় এ পর্যন্ত ৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তন্মধ্যে ১টি হত্যা মামলা, ১টি পুলিশ এসল্ট মামলা ও একটি দাঙ্গা হাঙ্গামার মামলা হয়েছে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ১লা সেপ্টেম্বর ৭নং বড়ইউড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হলদারপুর গ্রামের হাবিবুর রহমান এর লোকজনের সাথে পূর্ব বিরোধের জের ধরে ইসলাম উদ্দিন ও তার লোকজনের বিরোধ দেখা দেয়। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হলে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে ইসলাম উদ্দিন দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানসহ আরো কয়েকজন আহত হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই নুর উদ্দিন বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাবিবুর রহমানকে প্রধান আসামী করে ২৮জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৮/১০জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এদিকে গত ৩ সেপ্টেম্বর ছোট বাচ্চাদের ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে বানিয়াচং সদরের মহব্বত খানী এলাকার আমান উল্বা গংদের সাথে জাতুকর্নপাড়ার মুসলিম মিয়া গংদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে পুলিশের এএসআই হারুন, খলিল, বিশ্বজিৎ, কঃ মুহিনুর, কঃ বশিরসহ অন্তত ৩০জন আহত হয়েছে। এ সংঘর্ষে ঘটনা নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ৩০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে পুলিশের কর্তব্যকাজে বাঁধা দেয়ার অপরাধে উয়পক্ষের ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২০০/২৫০ দাঙ্গাবাজদের বিরুদ্ধে পুলিশ এসল্ট মামলাদায়ের করা হয়েছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে সংঘর্ষ জড়িত থাকার অপরাধে  জাতুকর্নপাড়ার মোঃ আক্তার হোসেন (২৮), মোঃ ছামির হোসেন (২২), কামাল হোসেন (২০), রুবেল মিয়া (২২), আবু সাইদ (১৮), রুহেল মিয়া (২৪), মোবাশ্বির আহমদে (১৭), হাদিস মিয়া (১৭), মোজাম্মিল (২০), আব্দুল কাদির (৪৮), বারেক (৩৫), তোফাজ্জ্বল মিয়া (১৮), মোজাহিদ মিয়া (৪৫), খোরশেদ আলী (৩৫), ফারুক মিয়া (৩৬),  মোস্তাকিন (১৬), তোয়াব মিয়া (১৫) সহ ২০ জনকে গ্রেফতার করেছে। গত মঙ্গলবার গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিজ্ঞ কোর্ট এর মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। এছাড়া ঈদের পর দিন পূর্ব বিরোধের জের ধরে পুকড়া ইউনিয়নের সিকান্দরপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম, পরশ মিয়া গংদের লোকজনের অস্ত্রের আঘাতে মারাত্মক জখমপ্রাপ্ত হন মোশারফ হোসেন তরফদার ও মনির মিয়া (২৫)। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় আহত ২দুইজনকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে গত সোমবার মার্কুলীবাজার এর কাদিরগঞ্জ জনতা ব্যাংকের প্রবেশের সময় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে এক ব্যবসায়ী আহত হয়েছেন। পরে তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

Share
প্রধান সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতা ॥ শাহাব উদ্দিন আহমেদ বেলাল
প্রধান সম্পাদক কর্তৃক লন্ডন থেকে প্রকাশিত।
ফোন ॥ (+৪৪)৭৯৪৪৩০৫৪৮৮
ই-মেইল ॥ probashebangladesh@hotmail.com
Copyright © BY Probashe Bangladesh
Design & Developed BY Popular-IT.Com