,
Menu |||

সিলেট জেলা ঃ সিলেটের ঐতিহ্যবাহী সাতকরা রফতানি হচ্ছে বিদেশে

রোববার ১৮ অক্টোবর ২০১৫ ঃঃ
Slide1 আজমল খান ঃ প্রবাসী অধ্যুসিত সিলেট অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী সাতরকরা একটি প্রসিদ্ধ খাদ্যের নাম।এই সাতকরার দেশে  বিদেশে রয়েছে অনেক খ্যাতি।ধনী গরীবের ব্যবধান ঘুচিয়ে এটি সবার খাদ্য তালিকার প্রথম সারিতে।সিলেটে অতিথিয়েতার জন্য  এর জুড়ি নেই।যে কোন ধরনের খাদ্যের সাথে মিশিয়ে খাওয়া যায়।পুরো ১২ মাসই খেতে পারেন।সিলেট ছাড়া অন্য কোথাও এটি  পাওয়া যায়না।বর্তমানে সিলেট অঞ্চলের চাহিদা মিটিয়ে এটি বিদেশেও রফতানি করা হয়।ইউরোপ আমেরিকাসহ মধ্যপ্রাচ্যেও  রফতানী করা হয়।এটি সিলেটের একটি অর্থকরী ফসল।তার বিশেষ গুনাগুণ, আলাদা বৈশিষ্ট্য ও পরিচিতি রয়েছে।এই সাতকরা  মাছ বুনা,মাংস বুনার সাথে কিংবা আচার তৈরী করেও খাওয়া যায়।সুস্বাধু খাবারের ঐতিহ্যের বিশাল একটি অংশ দখল করে  রয়েছে এই ফলজ সুস্বাধু খাদ্য।সাতকরা রান্না করা হলে তার ঘ্রান ও সুগন্ধিতে জিভে পানি এসে যায়।এর কদরও অনেক বেশি।  যেন না খেলেই না হয়।একটু ভাল হাতে রান্না করা হলে না খেয়ে উপায় নেই। নামিদামি খাবারের সাথে সাতকরারর তরকারি  অথবা  আচার না খাকলে খাবার যেন অপুর্ণ থেকে যায়। তবে মজার ব্যাপার হল এই সাতকরা কিভাবে খেতে হয় তা জানা না  থাকলে বিপত্তি দেখা দেয়।যে রান্না করবে অবশ্য তা আগেভাগেই জেনে নিতে হবে। রান্না প্রাণালী জানা না থাকলে যে রাঁধবে Slide1তাকে অখ্যাতি অজর্নের দায় নিতে হবে। যদি সারা বছর খেতে চান তাহলে ফ্রিজার করে রাখতে পারেন অথবা লেবুরমতো টুকরো টুকরো করে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে।ভাল করে শোকানোর পর তৈল ও পরিমানমতো রসুন দিয়ে ভাজতে হবে।এরপর ধনিয়া ও হলুদ দিতে হবে।ভাজা শেষ হলে পাঁচপুরণ, লবং,গুল মরিচ এলাচি মশলা মাখিয়ে তৈল ও শিরকা দিয়ে চুবিয়ে রাখতে হবে।যে কৌটায় রাখা হবে কৌটাটি ভাল করে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে।তারপর কোটায় ভরে প্রখর রোদে কমপক্ষে সপ্তাহ দিন শোকানোর পরই তৈরী হবে সুস্বাধূ আচার। যদি এটি বেশিদিন সংরক্ষণ করে রাখতে চান তাহলে সপ্তাহে অন্তত একদিন শোকাতে হবে। এর পর এটি সারা বছর খেতে পারেন মজাদার এই খাদ্য।অন্য প্রণালেিতও আচার তৈরী করা যায়।লেবুর মতো টুকরো কওে রোদে না শুকিয়ে তেলে ভাজতে হবে ভাজার পর এটাকে রোধে শুকাতে হবে। এভাবে একাধিক রকমের সুস্বাধু আচার তৈরী হয়।কাচা টুকরো করে মাছ মংসতে মিশিয়ে খাওয়া যায়।বাবুর্চি এলাইচ মিয়া জানান, সাতকরা রান্নার বিভিন্ন ধরনের প্রণালী রয়েছে। একাধিক আইটেম তৈরী করা যায়। মাংস দিয়ে রান্না করে খাবার পরিবেশন করা হলে যে কেউ খেতে চাইবে। যে খেতে চাননা তারও খাবারের আগ্রহ বেড়ে যায় রুচিশীল সুগন্ধি ছড়িয়ে পড়ার পর।তিনি জানান,সাতকরার আচারের কোন তুলনা হয়না। এছাড়া এর বেশ কিছু ঔষধী গুণও রয়েছে। যার ফলে এটি দেশে বিদেশে সুনামের সহিত সমাদৃত। যুগান্তর সিলেট অফিসের সৌজনে্য 

 

Share
প্রধান সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাতা ॥ শাহাব উদ্দিন আহমেদ বেলাল
প্রধান সম্পাদক কর্তৃক লন্ডন থেকে প্রকাশিত।
ফোন ॥ (+৪৪)৭৯৪৪৩০৫৪৮৮
ই-মেইল ॥ probashebangladesh@hotmail.com
Copyright © BY Probashe Bangladesh
Design & Developed BY Popular-IT.Com